জনাব মুহঃ সাইফুল ইসলাম চেয়ারম্যান (স্ব-নির্ভর ধামসোনা ইউনিয়ন)
জনাব মুহঃ সাইফুল ইসলাম চেয়ারম্যান (স্ব-নির্ভর ধামসোনা ইউনিয়ন)

প্রশংসার দাবীদার (স্ব-নির্ভর ধামসোনা ) ইউ.পি চেয়ারম্যান মুহঃ সাইফুল ইসলাম

দেশবন্ধু নিউজ নিজস্ব প্রতিবেদন-সাঈম সরকার-ঢাকা : ঢাকা জেলার অন্যতম শিল্প এলাকা আশুলিয়া। এই এলাকায় উন্নয়নমূলক সমাজ সেবায় যে সকল নিবেদিত প্রাণ রয়েছে তার মধ্যে জনাব মুহঃ সাইফুল ইসলাম চেয়ারম্যান (স্ব-নির্ভর ধামসোনা ইউনিয়ন) অন্যতম প্রধান ব্যক্তিত্ব। সাড়া আশুলিয়াকে উন্নতির স্বর্ণ-শিখরে পৌছানোই যার আজীবন স্বপ্ন।

তিনি মনে-প্রাণে বিশ্বাস করেন যে, ন্যায়-অন্যায় দুটি শব্দ এক সাথে চলতে পারেনা এবং চলতে দেওয়া যায় না। তিনি কিশোর জীবন থেকেই ন্যায়-অন্যায়, ভাল-মন্দ, সৎ-অসৎ এর তফাৎ বুঝতে পেরেছিলেন। তার জন্ম হয়েছিল ধামসোনা ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের ডেন্ডাবর গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে। ওনার বাবা আলহাজ্ব সিরাজুল ইসলাম সরকার ছিলেন অত্র এলাকার মধ্যে অগাৎ ভূমি ও অর্থ সম্পদের মালিক। বাবার এত অর্থ সম্পদ ও প্রাচুর্য্য থাকার পরেও তার হৃদয়ে ছিল না এক বিন্দু আত্ব-অহংকার এবং আভিজাত্বের গৌরব। তার পড়োনের কাপড়-চোপড় ও চাল-চলনস ছিল একেবারে সাদা মাটা। তিনি এলাকার গরীব ও সাধারণ মানুষকে খুব ভালবাসতেন এবং ঐসব সাধারণ মানুষের মতই জীবন-যাপন করতেন। আবার শিক্ষা জীবনে লেখাপড়াকেও ব্যপক প্রাধান্য দিতেন বলেই তিনি ছাত্রজীবনে লেখাপড়ায় মেধাবী তালিকায় ছিলেন এক নাম্বার। ছাত্রজীবন থেকেই আপোষহীনতা ছিল তার অন্যায়-অত্যাচার, অপকর্ম ও অসততার প্রতি।

স্কুল জীবন থেকেই তিনি চলেছেন আলোকিত-আলোড়িত ও ভাল পথে। আলোকিত আর ভাল পথে চলতে চলতে সে দিনের দূরন্ত কিশোর মুহঃ সাইফুল ইসলাম বিভিন্ন পরিক্রমার মধ্য দিয়ে আজ একজন স্বার্থক পূর্ণাঙ্গ মানুষ রূপে আত্বঃপ্রকাশ ঘটেছে। তিনি শিক্ষার উন্নত শিখরে পৌছাতেও সক্ষম হয়েছেন। তিনি রাষ্ট্র বিজ্ঞান নিয়ে লেখা পড়া করে অনার্স পাশ করার মধ্য দিয়ে নিজেকে আত্ব-নির্ভর করে তুলেছেন। তার অতিতের দেখা স্বপ্ন মনের ভিতরে তারাইয়া বেড়াতে থাকে। আশুলিয়াকে উন্নতির স্বর্ণ-শিখড়ে পৌছাতেই হবে, সেই স্বপ্নকে সামনে রেখেই সততার মাধ্যমে নিজ উদ্বেগে গা ঘামিয়ে জনগণের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত করলেন। বঙ্গ-বন্ধুর আদর্শকে বুকে জড়িয়ে ধরে দেশ প্রেম রাজনীতিতে পূরোদমে নেমে পড়লেন। প্রগতিশীল রাজনীতির সাথে জড়িত এই রাজনীতিবিদ মনে প্রাণে ও কাজে-কর্মে একজন খাঁটি মুসলমান হলেও সকল ধর্মের মানুষ তার কাছে নিরাপত্তা খুঁজে পায়। হিন্দু-মুসলিম, জাত-বিজাত, ধনী-গরীব বলতে তার কাছে কোন ভেদা-ভেদ নাই। তিনি সকল ধর্মের উর্দ্বে থেকে মানুষকে ভালবাসের। তার দর্শন হলো, মানুষ-মানুশের জন্য। আর এই দর্শনের ভিত্তিতেই তিনি সকল ধর্মের মানুষের পাশে দাড়ান সময় ও অসময়ে। গুণীগনদের কদর করা তার চরিত্রের অন্যতম বৈশিষ্ট্য। তিনি সমাজের শিক্ষিত, সচেতন, সুশীল ও গুণীজনদে প্রচন্ড ভালবাসতেন এবং শ্রদ্ধা করে থাকেন। গুণীজনদের সহচার্যে থেকে তিনি নিজেও একজন গুণীজনে পরিণত হয়েছেন। ফলে তার পরিচিতি পরিসর ধামসোনা পেরিয়ে বিস্তৃত সাড়া আশুলিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে। জনসেবা, সমাজসেবা, সমাজ সংস্করণ ও মানবতাবোধ চরিত্র তাকে অনেক বড় মাপের গুণীজনে পরিনত করেছে। আর এই বিশাল চরিত্রের গুণীজন তার কর্মের অবদান হিসেবে জনগণ তাকে বিপুল ভোটে স্ব-নির্ভর ধামসোনা ইউনিয়নের পরিষদের চেয়ারম্যান হিসাবে চেয়ার টি উপহার দিয়েছেন। তিনি সাড়া বাংলাদেশের সকল চেয়্যারম্যানদের চেয়ে অনেক বেশি ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান হয়েছেন।

একেই বলে সুযোগ্য পিতার সুযোগ্য সন্তান। তিনি তার কিশোর জীবনে দেখা স্বপ্ন বাস্তবায়নের উদ্দেশ্যে কাজ করে চলছেন। তার ইউনিয়নের প্রতিটা মানুষের দুঃখ-বেদনায় সহমর্মিতার হাত বাড়িতে দূরন্ত গতিতে এগিয়ে চলছেন। মানুষকে তিনি ব্যপক ভালবাসেন তাই সাড়া আশুলিয়া যেকোন প্রান্তেই হোক না কেন, সমাজের মানুষের নানাবিধ সমস্যায় তিনি এগিয়ে যান স্বতঃস্ফূর্তভাবে। তিনি চেয়ারম্যান হওয়ার পর হতেই ব্যপক উন্নয়ন মূলক কাজে হাত দিয়েছেন এবং তাহা দ্রূত গতিতে এগিয়ে চলছে। খাস জমি উদ্ধারে সরকার ও আইন প্রয়োগকারী সংস্থাকে ব্যপক সহযোগিতা করে আসছেন। অনেক গৃহহীনদের তিনি বাসস্তানের ব্যবস্থ করেছেন এবং শিক্ষাখাতে তাহার ব্যপক অবদান ও সহযোগিতায় তাহার হাত প্রসারিত হওয়ায় তিনি আলোরিত ও আলোচিত। ইতিপূর্বে এই স্ব-নির্ভর ধামসোনা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যানগণ উন্নয়নমূলক যতগুলো কাজ করেছেন তার চেয়ে প্রায় দশগুণ কাজ বেশি করেছেন। দেশরত্ন প্রধান মন্ত্রী মাননীয় শেখ হাসিনার উন্নয়নমূলক কাজের তিনিও একজন দাবিদ্বার। তার উন্নয়নমূলক কাজে সন্তুষ্ট প্রকাশ করেছেন ঢাকা-১৯ আসনের বর্তমান এমপি মহোদয় ত্রাণ ও দূর্যোগ মন্ত্রণালয় জনাব এনামুর রহমান সাহেব। জনাব সাইফুল ইসলাম চেয়ারম্যান মাননীয় এনাম সাহেবের একজন আস্তাবাজন চেয়ারম্যান হিসেবে খ্যাতি অর্জন করতে সক্ষম হয়েছেন। তার উন্নয়নমূলক কাজের মধ্যে বাস্ববায়িত হয়েছে প্রায় ৬০ ভাগ কাজ বাস্তবায়িত হয়েছে। নিন্মরূপ উন্নয়নমূলক ও সমাজসেবামূলক কাজগুলোর মধ্যে (১) রাস্তা-ঘাট নির্মাণ, (২) বৃক্ষরোপন, (৩) মাদক বিরোধী কার্যক্রমে প্রশাসককে সহযোগিতা করা, (৪) প্রতি বন্ধীদের সহায়তা প্রকল্প, (৫) গরীবদের রিরিফ ব্যবস্থা (৬) বয়স্কো ভাতা সহ প্রায় অর্ধশত কর্মসূচি হাতে নিয়েছেন এবং তাছাড়া আরো রয়েছে মাননীয় প্রধান মন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সকল উন্নয়ন মূলক কাজের ব্যপক প্রচারণা।

জনাব সাইফুল ইসলাম চেয়ারম্যান এর দরজা ২৪ ঘন্টা মানুষের জন্য খোলা রয়েছে। দিন রাত ২৪ ঘন্টা যেকোন মূহুর্তে, যেকোন প্রয়োজনে সাইফুল ইসলাম চেয়ারম্যানকে সমস্যার কথা বলে ১মিনিট ফোন করলেই নির্লস ছুটে যান। যার কারণে ধামসোনা পেরিয়ে সাড়া আশুলিয়াবাসী তার সর্বাঙ্গীন সু¯’ ও দীর্ঘায়ূ কামনা করেন।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category