কবির হোসেন সরকার
কবির হোসেন সরকার

মানুষ ও মানবতার, সমাজসেবক জনতার কবির হোসেন সরকার

সাঈম সরকার : মানুষ ও মানবতার সেবাকেই যিনি সর্বশ্রেষ্ট কর্ম এবং ধর্ম বলে মনে করেন, তিনি হলেন আশুলিয়ার স্বনাম ধন্য আলোকিত ব্যক্তিত্ব এবং যুব সমাজের অহংকার, অসহায়দের আশ্রয় স্থল জনাব, কবির হোসেন সরকার, (আশুলিয়া থানা যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা আহবায়ক) বর্তমানে প্রাণঘাতি ও ভয়ংকর মহামাড়ি “করোনা”ভাইরাসের আতংকে সাড়া বাংলাদেশে তথা সাড়া বিশ^ যখন স্থবির (নিস্তব্ধ)।
পৃথিবীর সকল মানুষ, যখন ভয় আতংকে নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছে, সেখানে এই দূরদিনে আশুলিয়া যুবলীগ নেতা কবির হোসেন সরকার দিব্যি জনগণের পাশে থেকে  এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে হাসি মুখে জনসেবায় নিজেকে ব্যস্ত রেখেছেন। তার নিজ এলাকায় প্রতিটা অসহায় হত দরিদ্র পরিবারের দাড়ে দাড়ে ঘুড়ে সাধ্য অনুযায়ী সাহায্য সহযোগিতার হাত প্রসারিত করে চলছেন। রোজাদারদেরকে সাধ্য অনুযায়ী ইফতার সামগ্রী ও নিত্য প্রয়োজনিয় দ্রব্য অসহায় পরিবারের মধ্যে বিতরণ করেন।
শুধু তাই নয় তার নিজেস্ব বাড়ীর ভাড়াটিয়াদের প্রায় শতাধীক পরিবারের বাড়ী ভাড়া এক মাসের জন্য মৌকুফ  করে দিয়েছেন। আশুলিয়ার বিভিন্ন এলাকার যে সকল সমস্যা যুক্ত মানুষ তাকে চিনে এবং জানে, তারা তাদের সমস্যারন কথা ঠিক মত উপস্থাপন করলে কবির হোসেন সরকার এর নিকট থেকে খালি হাতে ফিরে আসেনি। ইয়ারপুর ইউনিয়ন এলাকায় শতাধীক ভাড়াটিয়া গরীব অসহায় ব্যক্তিদ্বয় ও স্থানীয় এলাকাবাসি জানায় প্রগতিশীল রাজনীতির সাথে জড়িত এই  রাজনীতিবীদ মনে প্রানে ও কাজে কর্মে  সকল ধর্মের উর্ধ্বে থেকে মানুষকে ভাল বাসেন।
কবির হোসেন সরকার

কবির হোসেন সরকার

তার দর্শন হল মানুষ মানুষের জন্য। আর এই দর্শনের ভিত্তিতেই তিনি সকল ধর্মের মানুষের সমস্যায় স্বতঃফূর্ত পাশে গিয়ে দাড়ান সময় অসময়। আর এই জন্যই তিনি জননেতা এবং জনতার কবির হোসেন সরকার। এই চিত্রটিই বলে দেয় কবির হোসেন সরকার একজন নির্মোহ সমাজ সেবক ও মানবদরদী সৎ রাজনীতিবিদ।
শিল্প এলাকা আশুলিয়ায় ই্য়ারপুর ইউনিয়নের বাগবাড়ী গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্ম গ্রহন করেছেন এই মহান মনের আলোকিত মানুষটি। পিতাঃ মরহুম গিয়াস উদ্দিন সরকার ছিলেন অত্র এলাকার মধ্যে অঘাদ অর্থ ও ভূমি সম্পদের মালিক । বাবার অঘাত অর্থ সম্পদের মাঝে জন্ম গ্রহনকারী কবির হোসেন সরকার ছেলে বেলা থেকেই ন্যায়-অন্যায়, ভাল-মন্দ, সৎ-অসৎ এর তফাৎ বুঝতে পেরেছিলেন জীবনের ব্রত হিসেবে। ফলে তখন থেকেই তার পথ চলা শুরু করেছিল আলোকিত পথে। সেই আলোকিত ও আলোড়িত পথে চলতে  চলতে সেদিনের দূরন্ত কিশোর কবির হোসেন সরকার বিভিন্ন পরিক্রমার মধ্য দিয়ে  আজ হয়েছেন একজন পূর্নাঙ্গ মানুষ।
বহুগুনের অধিকারী এই মানুষটি সমাজের অন্য ধনিক শ্রেনীদের মত সমাজ থেকে নিজেকে লুকিয়ে না রেখে সমাজের সাধারণ মানুষের ভালবাসায় সিক্ত হয়ে, সমাজের মানুষের কাতারে এসে দাড়িয়েছেন। বর্তমান বিশে^ ভয়াল দানব “করোনা” ভাইরাসের মহামারী পরিস্থিতিতে সমাজ এবং সমাজের মানুষকে তিনি এক ও অভিন্ন সত্তায় ভেবে সমাজের সকল মানুষের সেবায় আত্বনিয়োগ করেছেন। পৈত্বিক সূত্রে অঘাত অর্থ ও ভূমি সম্পদের মালিক কবির হোসেন সরকার তিনিও পারতেন অনেকের মতো নিজের ঘরে বসে আরাম আয়েশে জীবন যাপন করতে। অথচ ধর্ম বর্ণ ভেদা-ভেদ ভুলে নিজের সুখ সাচ্ছন্দ কে পাশ কাটিয়ে দক্ষতা ও বিচক্ষনতার সাথে নিজ সাধ্যনুযায়ী অসহায়দেরকে সাহায্য ও সহযোগিতার হাত প্রসারীত করে চলছেন।
সাম্প্রাদায়িক সম্প্রীতি স্থাপনের বিরল নজীর হিসেবে তিনি তার এলাকায় আস্থা অর্জন করতেও সক্ষম হয়েছেন। সেই দিন হয়ত বেশি দূরে নয়, যেদিন ইয়ারপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান হিসাবে তিনি জিতে নেবেন মানুষের হৃদয়ের অকুন্ঠ ভালবাসা, জাতীয় পর্যায় পাবেন শ্রেষ্ট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের খেতাব এবং এলাকার মানুষের জন্য ও মানবতার জন্য নিবেদিত প্রাণ একজন সৎ ও সুযোগ্য প্রতিনিধি নির্বাচিত হবেন। আর তাই যদি হয় তবে সৎ রাজনীতিতে সেটি একটি মাইল ফলক হয়ে থাকবে।
দেশ ও জনগণের স্বার্থে এলাকাবাসি এই মানুষটির সর্বাঙ্গীন সাফল্য ও সমৃদ্ধি কামনা করেন। অথচ কিছু ভূইফোর গনমাধ্যমের কিছু অসৎ অসাধু ব্যক্তি উদ্ধেশ্য মূলক ভাবে নিজেদের ফায়দা লোটার জন্য এবং কবির হোসেন সরকারকে হেয় করার অপচেষ্ঠায় তার বিরুদ্ধে বদনাম করতে প্রচারনা চালায়। এলাকায় সাধারণ জনগণ ঐ প্রচারনাকে ঘৃনাভরে  প্রথ্যাক্ষান করেছে এবং তাদেরকে ভাল হওয়ার আহবান জানান। এদিকে কবির হোসেন সরকার ইয়ারপুর ইউনিয়ন তথা সারা আশুলিয়া বাসিকে ঈদ-উল ফিতরের অগ্রিম শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানায়।
Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category