আশুলিয়ার চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা

সাঈম সরকার : ঢাকার সাভার উপজেলার আশুলিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শাহাবুদ্দিন মাদবর ও তার সহযোগী- মামলায় ৪ জন এবং অন্য এক মামলায় ৮জনের বিরুদ্ধে ৫০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করা সহ ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে ২টি মামলা দায়ের করেছেন স্থানীয় রাজু আহমেদ নামের এক ব্যবসায়ী।

সূত্রে জানা গেছে, গত মঙ্গলবার সাইবার ট্রাইব্যুনালে মামলা দায়ের করেন রাজু গ্রপের চেয়ারম্যান রাজু আমেদ, মামলা নং ১৬৩/২০২০ইং এই মামলায় ৪জনকে আসামী করা হয়েছ। তারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকসহ বিভিন্ন মাধ্যমে রাজু আহমেদ ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডাঃ এনামুর রহমানকে জডয়িয়ে নানাভাবে অপপ্রচার চালিয়ে আসছে বলে জানাযায়। প্রতিবাদ করলে তাদের উপর হামলা হয়, সেই সাথে মামলা দিয়ে হয় রানি করেও থাকেন।

এই চক্র বিভিন্ন অপরাধের সাথে জড়িত রয়েছে বলে অনেকেই জানান। অপর মামলা নং ৩৬৪/২০২০ইং ধারা ৩৮৫/৩৮৬/৩৮৭/৪২০/৪০৬/৪২৩/৫০৬/১০৯ দঃ বিঃ, এই মামলার প্রধান আসামী আশুলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ শাহাব উদ্দিন মাতবর (৫০), তিনি আশুলিয়ার টঙ্গাবাড়ী এলাকার মৃত ওহাব মাদবরের ছেলে।

এই মামলায় ৮জনকে আসামী করা হয়েছে। মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, আশুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহাব উদ্দিন বিভিন্ন সমস্যা দেখিয়ে স্থানীয় রাজু আহমেদের কাছে ১০ লাখ টাকা ধার চান এবং দুই মাসের মধ্যে ওই টাকা পরিশোধ করার অঙ্গীকার করেন। এলাকার চেয়ারম্যান বলে কথা, মানবতার খাতিরে রাজু আহমেদ শাহাবুদ্দিনকে ৫ লাখ টাকা ধার দেন। পরবর্তীতে ওই ধারের টাকা পরিশোধ না করে আবার রাজু আহমেদের কাছে ৫০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন শাহাবুদ্দিন চেয়ারম্যান।

চাাঁদা দিতে অস্বীকার করলে শাহাবুদ্দিন তার সহযোগীদের দিয়ে ভুয়া ফেসবুক আইডি খুলে এবং অ্যাপস এর মাধ্যমে ভূয়া রেকর্ড তৈরি করে রাজু আহমেদ ও ঢাকা-১৯ আসনের এমপি ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডাঃ এনামুর রহমানকে জড়িয়ে দেশবাসীর কাছে প্রশ্নবিদ্ধ করতে বিভিন্ন অপপ্রচারে লিপ্ত হয়। উক্ত ব্যাপারে মামলার বাদী রাজু আহমেদ অভিযোগ করে বলেন, ৫০ লাখ টাকা চাঁদা দিতে রাজি না হওয়ায় শাহাবুদ্দিন মাদবরের লোকজন তার উপর হামলা করেছে।

এরপর রাজুর বিরুদ্ধে মিথ্যা অডিও প্রকাশ করে তাকে হেয় করা হয়। সেই অডিও রেকর্ডে ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডাঃ এনামুর রহমানকে হেয় করে অপপ্রচার করা হয় বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমে এটা ব্যাপক ছড়িয়ে পরে যাহা লজ্জাজনক বিষয়।

এই প্রভাবশালী চক্রের বিরুদ্ধে আশুলিয়া থানায় একাধিক জিডি, অভিযোগ ও মামলা রয়েছে। এ বিষয়ে আশুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহাব উদ্দিন মাদবরের সাথে একাধিকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

তার মুঠোফোনে কল করলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি। মাননীয় ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডাঃ এনামুর রহমানের সম্মান মানে সরকারের সম্মান, তাই যারা বিভিন্নভাবে সরকারের বদনাম করছে, তাদেরকে গ্রেফতারসহ সরকারের সুনাম রক্ষায় সঠিকভাবে তদন্ত করার দাবি করেন সচেতন মহল। উক্ত প্রতিবেদনটি ধারাবাহিক
ভাবে চলবে। পর্ব ১।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category